প্রচ্ছদ আইন-আদালত

জিয়া অরফানেজে জামিন হলেই কি কারামুক্ত হবেন খালেদা জিয়া?

54
জিয়া অরফানেজে জামিন হলেই কি কারামুক্ত হবেন খালেদা জিয়া?

জিয়া অরফানেজ দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত বেগম জিয়াকে চার মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়েছেন আদালত।

বয়স, শারীরিক অবস্থা ও সামাজিক মর্যাদা বিবেচনায় জামিন পেয়েছেন খালেদা জিয়া। সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বেগম জিয়ার জামিন আদেশ দেন। কিন্তু এখন প্রশ্ন উঠেছে তাঁর মুক্তি নিয়ে। জামিন হলেই কি কারামুক্ত হবেন বেগম জিয়া?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জামিন হলেও বেগম জিয়ার মুক্তি হবে তা নিশ্চিত করে বলা যায় না। বেগম জিয়ার জামিনের আদেশ আদালত থেকে কারাগারে পৌঁছানোর পর তিনি মুক্তি পাবেন। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা চলছে। এর যেকোনো এক বা একাধিক মামলায় বেগম জিয়াকে গ্রেপ্তার দেখানো হলে তাঁর মুক্তি আটকে যাবে। তাঁর কারামুক্তি হবে না। এই গ্রেপ্তার দেখানো এখন থেকে শুরু করে জেলগেটেও ঘটতে পারে।

এর আগে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ বিএনপি নেত্রীর জামির আবেদনের ওপর শুনানি হয়। সেদিন আদেশ না দিয়ে নথি দেখে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা বলেন দুই বিচারপতি।

এর আগে ২২ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের একই বেঞ্চ খালেদা জিয়ার করা আপিল গ্রহণ করে ১৫ দিনের মধ্যে মামলার নথি পাঠানোর আদেশ দেন। সেই অনুযায়ী ৭ মার্চ সেই সময় শেষ হয়। তবে হাইকোর্টের আদেশের কপি বিচারিক আদালতে পৌঁছেছে ২৫ ফেব্রুয়ারি। সেই অনুযায়ী ১১ মার্চ ১৫ দিন পূর্ণ হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি দুপুরে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত অস্থায়ী পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই তাকে পুরোনো ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরান ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়। এখন পর্যন্ত খালেদা জিয়া কারাগারেই আছেন।

প্রমাণ হলো বিচারে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করে না: আইনমন্ত্রী

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, বিএনপির নেতারা বলে বেড়িয়েছেন বেগম জিয়ার দণ্ড ও জামিনের বিষয়ে সরকার হস্তক্ষেপ করছে। তবে আজ প্রমাণ হলো বিচারে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করে না।

জিয়া অরফানেজ দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত বেগম জিয়াকে চার মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়েছেন আদালত। সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বেগম জিয়ার জামিন আদেশ দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে পৌনে তিনটার দিকে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের কাছে আইনমন্ত্রী একথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, জামিন অর্ডার জেলখানায় যাওয়ার পরই বেগম জিয়া মুক্তি পাবেন।

মামলার পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন পরবর্তী করণীয় ঠিক করবে। তারা অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিসের মাধ্যমে সরকারকে বিষয়টি অবহিত করতে পারে। কিন্তু সরকারের এখানে করার কিছু নেই।

শেয়ার

আপনার মন্তব্য করুন

Loading Facebook Comments ...